বিএনপি আগামী ৫০ বছরও ক্ষমতায় আসতে পারবেনা : হানিফ - DesherSomoy24.com
ঢাকাশনিবার , ৫ মার্চ ২০২২
  1. অপরাধ
  2. আন্তর্জাতিক
  3. খেলা
  4. জাতীয়
  5. নির্বাচন
  6. প্রচ্ছদ
  7. প্রধান খবর
  8. প্রবাসে বাংলা
  9. ফিচার
  10. বিনোদন
  11. ব্যবসা ও বাণিজ্য
  12. রাজনীতি
  13. শিক্ষা ও সাহিত্য
  14. সব
  15. সারাদেশ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বিএনপি আগামী ৫০ বছরও ক্ষমতায় আসতে পারবেনা : হানিফ

Mohammad Ali Sumon
মার্চ ৫, ২০২২ ৭:৫৪ অপরাহ্ণ
Link Copied!

এহসানুল হক রিপনঃ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দি আলাউদ্দিন সঙ্গীতাঙ্গণে আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় তিনি এই কথা বলেন একের পর এক ধ্বংসাত্মক কর্মসূচি দিয়ে দেশের উন্নয়নের অগ্রযাত্রা বাধাগ্রস্ত করার চেষ্টা তারা (বিএনপি) অব্যাহত রেখেছে।

কারণ তারা জানে উন্নয়ন অগ্রগতির ধারা যদি অব্যাহত থাকে এ দেশের জনগণ সবসময় শেখ হাসিনার প্রতি আস্থাশীল থাকবে। আগামি ৫০ বছরেও বিএনপির রাষ্ট্রের ক্ষমতায় আসার কোনো সুযোগ নেই।

এ কারণে তারা হতাশ। আর হতাশ হয়েই তারা নানা ধরনের মিথ্যাচার করে রাস্তায় নামছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ বলেন, কিছুদিন আগে বিএনপির নেতারা বললেন বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে, রাজনৈতিক কর্মসূচিও দেওয়া শুরু করলেন।

তারা বিএনপি নেত্রীর মুক্তি চাইলেন। খালেদা জিয়া একজন দণ্ডপ্রাপ্ত কয়েদি। কারা বিধান অনুযায়ী তিনি সকল সুযোগ সুবিধা পেয়ে যাচ্ছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর মানবিক দিক বিবেচনায় তিনি কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে বাসায় চিকিৎসা চালিয়ে যাচ্ছিলেন।

এরপর বিএনপি নেতারা দাবি করলেন, খালেদা জিয়া জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে, তাকে বিদেশে চিকিৎসার জন্য পাঠাতে হবে। কিন্তু বেগম খালেদা জিয়া সুস্থ হয়ে এখন বাড়িতে আছেন।তারা নতুন ইস্যু তৈরি করলেন নির্বাচন কমিশন নিয়ে। শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর নির্বাচন কমিশন গঠনে গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে সর্বোচ্চ পন্থা অবলম্বন করেছেন।

আমাদের দেশে যেহেতু নির্বাচন কমিশন আইন ছিল না, রাষ্ট্রপতি সব দলের সঙ্গে আলোচনা করলেন। পরামর্শ করে তাদের দেওয়া নামের ভিত্তিতে সার্চ কমিটি গঠন করে; সার্চ কমিটির নামগুলো যাচাই-বাছাই করে নির্বাচন কমিশন গঠন করেছেন। এটাই ছিল গণতান্ত্রিক পদ্ধতির সবচেয়ে উত্তম পন্থা।

বিএনপি তখন বেঁকে বসলো, তারা আলোচনায় অংশগ্রহণ করলেন না। দাবি করলেন নির্বাচন কমিশন আইনের। নির্বাচন কমিশন আইন সংসদে উত্থাপিত হলো। সেখানে তাদের দেওয়া ২২টি বিষয়ে সংশোধন করা হলো। ইতোপূর্বে বাংলাদেশের ইতিহাসে এমন নজির নেই, যেখানে বিরোধী দলের আপত্তি করা এতগুলো বিষয় সংশোধন করা হয়েছে।

তারা সকালে এক কথা বলে, দুপুরে আরেক কথা বলে, দুপুরে বললে রাতে আরেক কথা বলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর সভাপতিত্বে বিশেষ বর্ধিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এবং ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয় সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী।

আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ আসনের সংসদ সদস্য বি এম ফরহাদ হোসেন সংগ্রাম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ আসনের সংসদ সদস্য এবাদুল করিম বুলবুল, সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য উম্মে ফাতেমা নাজমা বেগম শিউলি আজাদ। বর্ধিত সভা সঞ্চালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।