ঢাকা ০৯:০২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৫ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

আখেরী মোনাজাতে শেষ হলো সিরাজগঞ্জের ইজতেমা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:৪৯:২৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১ ১০৬ বার পড়া হয়েছে

আখেরী মোনাজাতে শেষ হলো সিরাজগঞ্জের ইজতেমা

দেশের সময়২৪ অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
সোহাগ হাসানঃ আখেরী মোনাজাতের মধ্যদিয়ে যমুনা নদীর তীরে সিরাজগঞ্জ শহরের হাট পয়েন্টে শুরু হওয়া ৩ দিনব্যাপী আঞ্চলিক ইজতেমা শেষ হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) বাদ ফজর নামাজ থেকে ইজতেমার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়।
শনিবার (২৭ নভেম্বর) সকাল ১১টায় মুসলিম উম্মাহ এবং দেশ ও জনগনের কল্যাণ কামনায় মোনাজাত পরিচালনা করেন কাকরাইল মসজিদের মাওলানা আশরাফ আলী।
এমপি প্রফেসর ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্না, জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা কে.এম হোসেন আলী হাসান, পৌর মেয়র সৈয়দ আব্দুর রউফ মুক্তা ও চেম্বার প্রেসিডেন্ট আবু ইউসুফ সুর্য্য ইজতেমা ময়দানের মূল প্যান্ডেলে বসে মোনাজাতে অংশ নেন।
ইজতেমা ময়দান ও আশপাশের এলাকায় মোনাজাতে অংশ নেয়া হাজার হজার মুসল্লীর কন্ঠে আমিন আমিন ধ্বনি উচ্চারিত হতে থাকে। আশ-পাশের মহল্লা গুলোর বাড়িতে বাড়িতে নারীরাও জমায়েত হয়ে মোনাজাতে অংশ নেন।
আখেরী মোনাজাতে অংশ নেয়ার জন্য ভোর থেকেই ইজতেমা মুখি মানুষের ¯্রােত শুরু হয়। মানুষ পায়ে হেটে ইজতেমা ময়দানে যেতে থাকে। একপর্যায়ে ইজতেমা ময়দান কানায় কানায় পূর্ন হয়ে গেলে পাশের বাঁধ, রাস্তা-ঘাটে ও নদীতীরে
মানুষের ভীড় জমে যায়।
সিভিল সার্জন অফিস ও নর্থ বেঙ্গল মেডিক্যাল কলেজের মেডিক্যাল টিম ইজতেমায় আগতদের স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করে। এছাড়াও রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি, সিরাজগঞ্জ পৌরসভা, ফায়ার সার্ভিস, বিদ্যুৎ অফিসের পক্ষ থেকে স্বেচ্ছায় সহযোগিতা করা হয়।
আয়োজক কমিটির সদস্য মাওলানা আব্দুল হাই জানান, বিশ্ব ইজতেমার আদলে মূলত সিরাজগঞ্জ কেন্দ্রীক এই ইজতেমায় সুদান, ইন্দোনেশিয়া, শ্রীলংকা ও ভাতর থেকে আগত ৪৩ জন বিদেশী মেহমানসহ দেশী-বিদেশী অন্তত আড়াই থেকে ৩ লাখ
মুসুল্লী আখেরী মোনাজাতে অংশ নেন।
সিরাজগঞ্জ পুলিশ সুপার হাসিবুল আলম জানান, ইজতেমা মাঠ ও আশপাশের এলাকায় সাদা পোশাকে ও পোশাকধারী পুলিশ সদস্য নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও র‌্যাব ও অন্যান্য সংস্থার লোকজনও নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিল। ইজতেমা মাঠে পুলিশ কন্টোল রুম ও সিসি ক্যামেরা স্থাপন করে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়। আগত মুসুল্লীদের সুবিধার্থে ট্রাফিক সদস্যরা রাস্তায় দায়িত্ব পালন করেন।
মোনাজাতের অংশ নেয়ার পূর্বে সিরাজগঞ্জ-২ (সদর-কামারখন্দ) সংসদ্য সদস্য ড.হাবিবে মিল্লাত মুন্না সাংবাদিকদের জানান, মূলত মুসলিম উম্মাহ শান্তি কামনায় লাখো লাখো মুসল্লীদের সাথে মোনাজাতে অংশ নেয়ার জন্য এখানে এসেছি। সফল ভাবে ইজতেমা শেষ হওয়ায় তিনি আয়োজকসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আখেরী মোনাজাতে শেষ হলো সিরাজগঞ্জের ইজতেমা

আপডেট সময় : ০৯:৪৯:২৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১
সোহাগ হাসানঃ আখেরী মোনাজাতের মধ্যদিয়ে যমুনা নদীর তীরে সিরাজগঞ্জ শহরের হাট পয়েন্টে শুরু হওয়া ৩ দিনব্যাপী আঞ্চলিক ইজতেমা শেষ হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) বাদ ফজর নামাজ থেকে ইজতেমার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়।
শনিবার (২৭ নভেম্বর) সকাল ১১টায় মুসলিম উম্মাহ এবং দেশ ও জনগনের কল্যাণ কামনায় মোনাজাত পরিচালনা করেন কাকরাইল মসজিদের মাওলানা আশরাফ আলী।
এমপি প্রফেসর ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্না, জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা কে.এম হোসেন আলী হাসান, পৌর মেয়র সৈয়দ আব্দুর রউফ মুক্তা ও চেম্বার প্রেসিডেন্ট আবু ইউসুফ সুর্য্য ইজতেমা ময়দানের মূল প্যান্ডেলে বসে মোনাজাতে অংশ নেন।
ইজতেমা ময়দান ও আশপাশের এলাকায় মোনাজাতে অংশ নেয়া হাজার হজার মুসল্লীর কন্ঠে আমিন আমিন ধ্বনি উচ্চারিত হতে থাকে। আশ-পাশের মহল্লা গুলোর বাড়িতে বাড়িতে নারীরাও জমায়েত হয়ে মোনাজাতে অংশ নেন।
আখেরী মোনাজাতে অংশ নেয়ার জন্য ভোর থেকেই ইজতেমা মুখি মানুষের ¯্রােত শুরু হয়। মানুষ পায়ে হেটে ইজতেমা ময়দানে যেতে থাকে। একপর্যায়ে ইজতেমা ময়দান কানায় কানায় পূর্ন হয়ে গেলে পাশের বাঁধ, রাস্তা-ঘাটে ও নদীতীরে
মানুষের ভীড় জমে যায়।
সিভিল সার্জন অফিস ও নর্থ বেঙ্গল মেডিক্যাল কলেজের মেডিক্যাল টিম ইজতেমায় আগতদের স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করে। এছাড়াও রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি, সিরাজগঞ্জ পৌরসভা, ফায়ার সার্ভিস, বিদ্যুৎ অফিসের পক্ষ থেকে স্বেচ্ছায় সহযোগিতা করা হয়।
আয়োজক কমিটির সদস্য মাওলানা আব্দুল হাই জানান, বিশ্ব ইজতেমার আদলে মূলত সিরাজগঞ্জ কেন্দ্রীক এই ইজতেমায় সুদান, ইন্দোনেশিয়া, শ্রীলংকা ও ভাতর থেকে আগত ৪৩ জন বিদেশী মেহমানসহ দেশী-বিদেশী অন্তত আড়াই থেকে ৩ লাখ
মুসুল্লী আখেরী মোনাজাতে অংশ নেন।
সিরাজগঞ্জ পুলিশ সুপার হাসিবুল আলম জানান, ইজতেমা মাঠ ও আশপাশের এলাকায় সাদা পোশাকে ও পোশাকধারী পুলিশ সদস্য নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও র‌্যাব ও অন্যান্য সংস্থার লোকজনও নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিল। ইজতেমা মাঠে পুলিশ কন্টোল রুম ও সিসি ক্যামেরা স্থাপন করে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়। আগত মুসুল্লীদের সুবিধার্থে ট্রাফিক সদস্যরা রাস্তায় দায়িত্ব পালন করেন।
মোনাজাতের অংশ নেয়ার পূর্বে সিরাজগঞ্জ-২ (সদর-কামারখন্দ) সংসদ্য সদস্য ড.হাবিবে মিল্লাত মুন্না সাংবাদিকদের জানান, মূলত মুসলিম উম্মাহ শান্তি কামনায় লাখো লাখো মুসল্লীদের সাথে মোনাজাতে অংশ নেয়ার জন্য এখানে এসেছি। সফল ভাবে ইজতেমা শেষ হওয়ায় তিনি আয়োজকসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান।