ঢাকা ০৯:১৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৫ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরে শ্রেষ্ট শিক্ষা কর্মকত্তা শাহাদাৎ হোসেন

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০২:২৮:৫০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ অক্টোবর ২০২২ ১০৫ বার পড়া হয়েছে
দেশের সময়২৪ অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মো:আব্দুস সাত্তার ,দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ দিনাজপুর জেলার শ্রেষ্ট সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার র্নিবাচিত হলেন দিনাজপুর সদর উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার মো:শাহাদাৎ হোসেন।তিনি শ্রেষ্ট সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার ২০২২ নির্বাচিত হওয়ায় উপজেলা কমিটির নেতৃবৃন্দ,অভিভাবক ও বিভিন্ন সামাজিক সাংকৃতিক,সেচ্ছাসেবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ পৃথক পৃথক বার্তায় শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জ্ঞাপন করেছেন।

গত ২০সেপ্টম্বর দিনাজপুর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা বাছাই কমিটির সভাপতি ও দিনাজপুর জেলা প্রশাসক খালেদ মোহাম্মদ জাকী এবং সদস্য সচিব জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো:হোসেন আলীর স্বাক্ষরিত এক পএে সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো:শাহাদাৎ হোসেন কে দিনাজপুর জেলার শ্রেষ্ট সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার নির্বাচিত করা হয়েছে।

দিনাজপুর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সুএে জানা যায় সহকারী শিক্ষা অফিসার শাহাদাৎ হোসেন যোগদানের পরথেকে ক্লাস্টার শিশুদের দৈনিক উপস্থিতি বৃদ্ধিকরন,বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা ও শ্রেনি পাঠদান ,ইনোভেশন ধারনা প্রদান ,প্রাথমিক শিক্ষানিতি ও দিক নির্দেশনামূলক তথ্য প্রদান, ক্লাস্টার প্রাক- প্রাথমিক শ্রেনি টাইলস ও সজ্জিতকরণ,ফুলবাগান তৈরী,শিশুদের খেলাধূলার,ব্যবস্থাকরণে সক্রিয় সহযোগিতা প্রদান,শিক্ষার্থীদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ ও যৈক্তিক চাহিদার আলোকে র্কম পরিকল্পনা প্রনয়ণ,ও বিদ্যালয়ের সম্পদ রক্ষণাবেক্ষণ পরামর্শ প্রদান,কাবিংকার্যক্রমে উৎসাহ ও সম্প্রসারণে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা,প্রাথমিক শিক্ষার প্রয়োজনীয়তা ও গুরুত্ব সম্পর্কে পিতামাতাকে সচেতন করার উদ্দেশ্য মা সমাবেশ ও উঠান বৈঠক অংশগ্রহণ বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুননেছা মুজিব গোল্ডকাপ এবং প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্টের সফল আয়োজক।

শিশুদের আন্ত:প্রাথমিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজনে সক্রিয় সহযোগিতা প্রদান ও বিজয়ী শিশুদের পুরস্কৃত করার ব্যবস্থাকরণ,ট্যাগ অফিসারের দায়িত্ব পালনসহ ইত্যাদি কাজের স্বীকৃতি সরুপ প্রাথমিক শিক্ষা পদক বাছাই কমিটি মো:শাহাদাৎ হোসেন কে দিনাজপুর জেলার শ্রেষ্ট সহকারী শিক্ষা অফিসার ২০২২ পদকে মনোনিত করা হয়েছে।

মো:শাহাদাৎ হোসেন হোসেন ১৯৭৯ সালে সম্ভ্রান্ত এক মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন তাঁর ছেলে বেলার দিনগুলি কাটে নিভৃত এক গ্রামে।স্কুল জীবনে বরাবরই একজন মেধাবী ছাএ হিসেবে পরিচিত ছিলেন।

স্কুল কলেজের গন্ডি পেরিয়ে বাংলাদেশের সুনামধন্য রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাস বিভাগে উচ্চতর ডিগ্রি সম্পন্ন করেন।সদর উপজেলা সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো:শাহাদাৎ হোসেন বলেন প্রাথমিক শিক্ষা হলো সকল শিক্ষার ভিত্তি ও প্রথম স্তর।এই প্রথম স্তরের ভিত্তি যদি শক্ত না হয় তাহলে পরের স্তরগুলো দূর্বল বা নড়বড়ে হয়ে পড়বে ভিত শক্তিশালী হলে আমাদের পরর্বতী প্রজন্মের জন্য আর কোন ভয় নেই।

শিক্ষা যদি জাতির মেরুদন্ড হয় তাহলে আমাদের আর থেমে থাকার কোন সুযোগ নেই।দেশ ও জাতির উন্নয়নে সবাইকে একযোগে ভ’মিকা ও দায়িত্ব সর্ম্পকে সচেতন থাকতে হবে।মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের বাংলাদেশ বিনির্মানে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

আমরা যদি প্রাথমিক শিক্ষার ভিত্তি শক্তিশালী করি তাহলে আমরাও উন্নত বিশ্বের সারিতে শীঘ্রই সামিল হতে পারবো এবং নেতৃত্ব দিতে পারবো কাজেই মানুষকে নিদিষ্ট লক্ষে পৌচ্ছে দেয়।সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় জীবনে কাজেরও নানাবিধি ক্যটাগরি রয়েছে। তার মধ্যে শিক্ষা অন্যতম অনুষদ। সবার কাছে শিক্ষার গুরুত্ব যেমন অবধারিত শাহাদাৎ হোসেনের কাছেও এর ব্যতিক্রম নয়।

মো: শাহাদাৎ হোসেন এক স্বপ্নের ফেরিওয়ালা তিনি ফেরিকরে স্কুলে স্কুলে কোমলমতি শিশুদের স্বপ্ন দেখান মুঠো মুঠো সর্বস্তরে বিলি করে যান আদর্র্শিক জ্ঞানের আলো সমাজও জনপদ থেকে যাবতীয় অন্ধকার দূও করে আলোর রশ্মি দিয়ে সর্বএ বিকশিত করে তোলেন ।

সর্বজন শ্রদ্ধেয় মো: শাহাদাৎ হোসেন তাদের মধ্যে অন্যতম একজন। পৃথিবীতে এমন কিছু মানুষ আছে যারা শুধু নিজেদের সুখ সাচ্ছন্দ্য কিংবা অন্যকে কাঁদাতে পাড়ে। ভুলে যেতে পারে অতীতের সবকিছু আবার পাশাপাশি এমন ও মানুষ রয়েছেন যারা নিজেরা কেঁদেও অন্যকে সুখী করার চেষ্টা চালিয়ে যান।নিজের কাজে ও কর্মে সদা অবিচল ও পাহাড়ের মতো অটল থেকেছেন।হাসিমুখে মেনে নিয়েছেন সবকিছু।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

দিনাজপুরে শ্রেষ্ট শিক্ষা কর্মকত্তা শাহাদাৎ হোসেন

আপডেট সময় : ০২:২৮:৫০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ অক্টোবর ২০২২

মো:আব্দুস সাত্তার ,দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ দিনাজপুর জেলার শ্রেষ্ট সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার র্নিবাচিত হলেন দিনাজপুর সদর উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার মো:শাহাদাৎ হোসেন।তিনি শ্রেষ্ট সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার ২০২২ নির্বাচিত হওয়ায় উপজেলা কমিটির নেতৃবৃন্দ,অভিভাবক ও বিভিন্ন সামাজিক সাংকৃতিক,সেচ্ছাসেবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ পৃথক পৃথক বার্তায় শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জ্ঞাপন করেছেন।

গত ২০সেপ্টম্বর দিনাজপুর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা বাছাই কমিটির সভাপতি ও দিনাজপুর জেলা প্রশাসক খালেদ মোহাম্মদ জাকী এবং সদস্য সচিব জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো:হোসেন আলীর স্বাক্ষরিত এক পএে সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো:শাহাদাৎ হোসেন কে দিনাজপুর জেলার শ্রেষ্ট সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার নির্বাচিত করা হয়েছে।

দিনাজপুর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সুএে জানা যায় সহকারী শিক্ষা অফিসার শাহাদাৎ হোসেন যোগদানের পরথেকে ক্লাস্টার শিশুদের দৈনিক উপস্থিতি বৃদ্ধিকরন,বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা ও শ্রেনি পাঠদান ,ইনোভেশন ধারনা প্রদান ,প্রাথমিক শিক্ষানিতি ও দিক নির্দেশনামূলক তথ্য প্রদান, ক্লাস্টার প্রাক- প্রাথমিক শ্রেনি টাইলস ও সজ্জিতকরণ,ফুলবাগান তৈরী,শিশুদের খেলাধূলার,ব্যবস্থাকরণে সক্রিয় সহযোগিতা প্রদান,শিক্ষার্থীদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ ও যৈক্তিক চাহিদার আলোকে র্কম পরিকল্পনা প্রনয়ণ,ও বিদ্যালয়ের সম্পদ রক্ষণাবেক্ষণ পরামর্শ প্রদান,কাবিংকার্যক্রমে উৎসাহ ও সম্প্রসারণে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা,প্রাথমিক শিক্ষার প্রয়োজনীয়তা ও গুরুত্ব সম্পর্কে পিতামাতাকে সচেতন করার উদ্দেশ্য মা সমাবেশ ও উঠান বৈঠক অংশগ্রহণ বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুননেছা মুজিব গোল্ডকাপ এবং প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্টের সফল আয়োজক।

শিশুদের আন্ত:প্রাথমিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজনে সক্রিয় সহযোগিতা প্রদান ও বিজয়ী শিশুদের পুরস্কৃত করার ব্যবস্থাকরণ,ট্যাগ অফিসারের দায়িত্ব পালনসহ ইত্যাদি কাজের স্বীকৃতি সরুপ প্রাথমিক শিক্ষা পদক বাছাই কমিটি মো:শাহাদাৎ হোসেন কে দিনাজপুর জেলার শ্রেষ্ট সহকারী শিক্ষা অফিসার ২০২২ পদকে মনোনিত করা হয়েছে।

মো:শাহাদাৎ হোসেন হোসেন ১৯৭৯ সালে সম্ভ্রান্ত এক মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন তাঁর ছেলে বেলার দিনগুলি কাটে নিভৃত এক গ্রামে।স্কুল জীবনে বরাবরই একজন মেধাবী ছাএ হিসেবে পরিচিত ছিলেন।

স্কুল কলেজের গন্ডি পেরিয়ে বাংলাদেশের সুনামধন্য রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাস বিভাগে উচ্চতর ডিগ্রি সম্পন্ন করেন।সদর উপজেলা সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো:শাহাদাৎ হোসেন বলেন প্রাথমিক শিক্ষা হলো সকল শিক্ষার ভিত্তি ও প্রথম স্তর।এই প্রথম স্তরের ভিত্তি যদি শক্ত না হয় তাহলে পরের স্তরগুলো দূর্বল বা নড়বড়ে হয়ে পড়বে ভিত শক্তিশালী হলে আমাদের পরর্বতী প্রজন্মের জন্য আর কোন ভয় নেই।

শিক্ষা যদি জাতির মেরুদন্ড হয় তাহলে আমাদের আর থেমে থাকার কোন সুযোগ নেই।দেশ ও জাতির উন্নয়নে সবাইকে একযোগে ভ’মিকা ও দায়িত্ব সর্ম্পকে সচেতন থাকতে হবে।মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের বাংলাদেশ বিনির্মানে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

আমরা যদি প্রাথমিক শিক্ষার ভিত্তি শক্তিশালী করি তাহলে আমরাও উন্নত বিশ্বের সারিতে শীঘ্রই সামিল হতে পারবো এবং নেতৃত্ব দিতে পারবো কাজেই মানুষকে নিদিষ্ট লক্ষে পৌচ্ছে দেয়।সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় জীবনে কাজেরও নানাবিধি ক্যটাগরি রয়েছে। তার মধ্যে শিক্ষা অন্যতম অনুষদ। সবার কাছে শিক্ষার গুরুত্ব যেমন অবধারিত শাহাদাৎ হোসেনের কাছেও এর ব্যতিক্রম নয়।

মো: শাহাদাৎ হোসেন এক স্বপ্নের ফেরিওয়ালা তিনি ফেরিকরে স্কুলে স্কুলে কোমলমতি শিশুদের স্বপ্ন দেখান মুঠো মুঠো সর্বস্তরে বিলি করে যান আদর্র্শিক জ্ঞানের আলো সমাজও জনপদ থেকে যাবতীয় অন্ধকার দূও করে আলোর রশ্মি দিয়ে সর্বএ বিকশিত করে তোলেন ।

সর্বজন শ্রদ্ধেয় মো: শাহাদাৎ হোসেন তাদের মধ্যে অন্যতম একজন। পৃথিবীতে এমন কিছু মানুষ আছে যারা শুধু নিজেদের সুখ সাচ্ছন্দ্য কিংবা অন্যকে কাঁদাতে পাড়ে। ভুলে যেতে পারে অতীতের সবকিছু আবার পাশাপাশি এমন ও মানুষ রয়েছেন যারা নিজেরা কেঁদেও অন্যকে সুখী করার চেষ্টা চালিয়ে যান।নিজের কাজে ও কর্মে সদা অবিচল ও পাহাড়ের মতো অটল থেকেছেন।হাসিমুখে মেনে নিয়েছেন সবকিছু।