নির্বাচন

সোনাতলায় ভরাডুবিতে তলিয়ে গেলো নৌকা; ইউপি নির্বাচনে স্বতন্ত্রের জয়জয়কার

  প্রতিনিধি ১ ফেব্রুয়ারি ২০২২ , ১০:২০:২৭ প্রিন্ট সংস্করণ

received 1887450141456458

মিনহাজুল বারীঃ বগুড়া সোনাতলায় ৭টি ইউনিয়নে অনুষ্ঠিত হলো নির্বাচন। প্রথমবারের মত ইউনিয়ন পর্যায়ে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহন হয়েছে এ উপজেলায়। উপজেলার ইউপি নির্বাচনের ফলাফলে দেখা যায়, ৭টি ইউনিয়নের মধ্য ৬টিতে বিএনপি সমর্থিত ও আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থীদের জয়জয়কার।

300px X 250px AD

জানাযায়, সোনাতলা সদর ইউনিয়নে নির্বাচিত জাকির হোসেন বেলাল (বিএনপি সমর্থিত) স্বতন্ত্রপ্রার্থী আনারস প্রতিক নিয়ে ৬৪০১ ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দি মাহবুবুল আলম বুলু নৌকা প্রতিক নিয়ে ভোট পেয়েছেন ২৭৪৪টি।

জোড়গাছা ইউনিয়নে নির্বাচিত গোলাম রব্বানী (বিএনপি সমর্থিত) সতন্ত্রপ্রার্থী ঘোড়া প্রতিক নিয়ে ৮৫৫৯ ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দি আনারুল ইসলাম নৌকা প্রতিক নিয়ে ভোট পেয়েছেন ৭৫৯৬টি।
দিগদাইড় ইউনিয়নে নির্বাচিত শহিদুল হক টুল্লু (বিএনপি সমর্থিত) সতন্ত্র প্রার্থী মোটরসাইকেল প্রতিক নিয়ে ৬৯৭৯ ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দি মোস্তাক আহম্মেদ স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতিক নিয়ে ভোট পেয়েছেন ৫৩৭৫টি।

তেকানী চুকাইনগর ইউনিয়নে নির্বাচিত জাহিদুল ইসলাম (বিদ্রোহী) সতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতিক নিয়ে ৩৭৩৫ ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দি আবু তাহের ব্যাপরী টেবিলফ্যান প্রতিক নিয়ে ভোট পেয়েছে ২৫৯৩ টি।
পাকুল্লা ইউনিয়নে নির্বাচিত একেএম লতিফুল বারী টিম (বিএনপি সমর্থিত) স্বতন্ত্র প্রার্থী মোটরসাইকেল প্রতিক নিয়ে ৫১২৩ ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দি মোঃ আতোয়ার রহমান ঘোড়া প্রতিক নিয়ে ভোট পেয়েছেন ৪৬৫৭ টি।

মধুপুর ইউনিয়নে নির্বাচিত আব্দুল আলিম (স্বতন্ত্র প্রার্থী) মোটরসাইকেল প্রতিক নিয়ে ৩৩৬১ ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দি দবির হোসেন মন্ডল নৌকা প্রতিক নিয়ে ভোট পেয়েছেন ২৬৬৫ টি।

এদিকে নির্বাচনটিতে শুধুমাত্র উপজেলার বালুয়া ইউনিয়নে নৌকা প্রতিক নিয়ে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী আব্দুল আজিজ মন্ডল ৫২৮৮ ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দি স্বতন্ত্র প্রার্থী নুর আলম সরকার সাবিরুল মোটরসাইকেল প্রতিক নিয়ে পেয়েছেন ৩২৫৮টি ভোট।

নৌকার এমন ভরাডুবির বিষয়ে সোনাতলা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ আব্দুল মালেকের সাথে সাথে কথা বললে তিনি জানান, কেন্দ্র থেকে সঠিক এবং যোগ্য ব্যাক্তিকে মনোনয়ন না দেওয়ার কারনেই এমনটাই হয়েছে। আমরা প্রতিটা ইউনিয়নে সিলেকশন করে নামের তালিকা প্রেরণ করেছি। তার মধ্য অনেকেই ভালো ভোট পেয়েছে।

উল্লেখ্য, সোনাতলা উপজেলা ৭টি ইউনিয়নে ইলেকট্রনিক্স ভোটিং মেশিনের মাধ্যমে ভোট গ্রহন হয়। ছোটখাটো বিশৃঙ্খলা ছাড়া ভোটের দিনে কোনো বিশৃঙ্খলার খবর পাওয়া যায় নি। সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত চলে এ ভোট গ্রহন।

৭টি ইউনিয়নে ৭৪টি ভোট কেন্দ্রে চেয়ারম্যান পদে ৪০জন, সাধারণ সদস্য পদে ২৭১জন ও মহিলা সংরক্ষিত পদে ৯৭জন প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। এতে মোট ভোটার সংখ্যা ১লক্ষ ৩৫ হাজার ৯শত জন ।

আরও খবর

Sponsered content