ঢাকা ১০:২৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৯ মে ২০২৩, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ ::
লালমনিরহাটে চাউলের বস্তায় মিললো ৩৮ লাখ টাকা কালীগঞ্জে বঙ্গবন্ধুর জুলিও কুরি শান্তি পদক প্রাপ্তির ৫০ বছর উদযাপন শিক্ষার্থীরাই স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মানের কারিগর -হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি দোয়ারাবাজারে বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল খালেকের রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন কালীগঞ্জে মসজিদ, মন্দির ও শশ্মানে আর্থিক সহায়তা প্রদান প্রয়াত জাতীয় নেতা সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের স্বপ্নের দিরাই শাল্লা সড়কের কাজ উদ্বোধন দোয়ারাবাজারে মৎস্য ব্যবসায়ীদের ধর্মঘট উপজেলাজুড়ে মাছের জন্য হাহাকার কালিয়ায় বঙ্গবন্ধুর জুলিও কুরি শান্তি পদক প্রাপ্তির ৫০ বছর উদ্‌যাপন নবীনগর স্কুলের টাকা আত্মসাতের কথা স্বীকার করলেন প্রধান শিক্ষক! মোংলায় বজ্রপাতে নিহত ১, আহত ১

কাউখালীতে প্রশ্ন ফাঁস না করায় শিক্ষকের উপর হামলা

পিরোজপুর প্রতিনিধি।
  • আপডেট সময় : ০৯:৩৭:৫৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ মে ২০২৩ ৩৫ বার পড়া হয়েছে
দেশের সময়২৪ অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

পিরোজপুরের কাউখালীতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীন মূল্যায়ন পরীক্ষার প্রথম দিনে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষককে প্রশ্ন ফাঁস করার জন্য চাপ প্রয়োগ করেন সহকারী শিক্ষক নাদির কানিজ। প্রশ্ন ফাঁস না করায় ঐ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মিলন কৃষ্ণ পাল এর উপর ক্ষিপ্ত হয়ে শিক্ষিকার স্বামী মনিরুজ্জামান হামলা চালায়। জানা যায়, গত ১৬ মে উপজেলার মধ্য সোনাকুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরীক্ষার প্রশ্নপত্র নিয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বিদ্যালয়ে পৌছান। এরপর সহকারী শিক্ষক নাদিরা কানিজ তার মেয়ে আরিবা একই বিদ্যালয়ে দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ে বিধায় পরের দিন অভ্যন্তরীন মূল্যায়ন পরীক্ষার প্রথম দিনে ইংরেজী প্রশ্ন দেখতে চান। প্রধান শিক্ষক প্রশ্ন দেখাতে অপারগতা প্রকাশ করেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে সহকারী শিক্ষক নাদিরা তার মেয়েকে পরীক্ষার শুরুর পূর্বেই বাড়ি পাঠিয়ে দেয়। পরীক্ষা শেষে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বাড়ি ফেরেন। বিকেলে তিনি বাড়ির সামনে নদীর পাড়ে ঘুরতে গেলে ঐ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নাদিরা কানিজের স্বামী মনিরুজ্জামান অতর্কিতভাবে হামলা চালায়। তার ডাক চিৎকারে এলাকার লোকজন তাকে উদ্ধার করে। এ ব্যাপারে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মিলন পাল কাউখালী থানা ও প্রশাসনের নিকট আইনগত ব্যবস্থা পাওয়ার জন্য আবেদন করেন। এ বিষয়ে সহকারী শিক্ষক নাদিরা কানিজ জানান, আমাদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে আমরা নিজেরা আলোচনা মাধ্যমে সমাধান করে ফেলব। কাউখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাকারিয়া জানান, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মেহের নিগার সুলতানা জানান, বিষয়টি তিনি জানতে পেরেছেন। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

কাউখালীতে প্রশ্ন ফাঁস না করায় শিক্ষকের উপর হামলা

আপডেট সময় : ০৯:৩৭:৫৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ মে ২০২৩

পিরোজপুরের কাউখালীতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীন মূল্যায়ন পরীক্ষার প্রথম দিনে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষককে প্রশ্ন ফাঁস করার জন্য চাপ প্রয়োগ করেন সহকারী শিক্ষক নাদির কানিজ। প্রশ্ন ফাঁস না করায় ঐ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মিলন কৃষ্ণ পাল এর উপর ক্ষিপ্ত হয়ে শিক্ষিকার স্বামী মনিরুজ্জামান হামলা চালায়। জানা যায়, গত ১৬ মে উপজেলার মধ্য সোনাকুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরীক্ষার প্রশ্নপত্র নিয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বিদ্যালয়ে পৌছান। এরপর সহকারী শিক্ষক নাদিরা কানিজ তার মেয়ে আরিবা একই বিদ্যালয়ে দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ে বিধায় পরের দিন অভ্যন্তরীন মূল্যায়ন পরীক্ষার প্রথম দিনে ইংরেজী প্রশ্ন দেখতে চান। প্রধান শিক্ষক প্রশ্ন দেখাতে অপারগতা প্রকাশ করেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে সহকারী শিক্ষক নাদিরা তার মেয়েকে পরীক্ষার শুরুর পূর্বেই বাড়ি পাঠিয়ে দেয়। পরীক্ষা শেষে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বাড়ি ফেরেন। বিকেলে তিনি বাড়ির সামনে নদীর পাড়ে ঘুরতে গেলে ঐ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নাদিরা কানিজের স্বামী মনিরুজ্জামান অতর্কিতভাবে হামলা চালায়। তার ডাক চিৎকারে এলাকার লোকজন তাকে উদ্ধার করে। এ ব্যাপারে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মিলন পাল কাউখালী থানা ও প্রশাসনের নিকট আইনগত ব্যবস্থা পাওয়ার জন্য আবেদন করেন। এ বিষয়ে সহকারী শিক্ষক নাদিরা কানিজ জানান, আমাদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে আমরা নিজেরা আলোচনা মাধ্যমে সমাধান করে ফেলব। কাউখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাকারিয়া জানান, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মেহের নিগার সুলতানা জানান, বিষয়টি তিনি জানতে পেরেছেন। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।