ঢাকা ১১:৪৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৯ মে ২০২৩, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ ::
লালমনিরহাটে চাউলের বস্তায় মিললো ৩৮ লাখ টাকা কালীগঞ্জে বঙ্গবন্ধুর জুলিও কুরি শান্তি পদক প্রাপ্তির ৫০ বছর উদযাপন শিক্ষার্থীরাই স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মানের কারিগর -হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি দোয়ারাবাজারে বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল খালেকের রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন কালীগঞ্জে মসজিদ, মন্দির ও শশ্মানে আর্থিক সহায়তা প্রদান প্রয়াত জাতীয় নেতা সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের স্বপ্নের দিরাই শাল্লা সড়কের কাজ উদ্বোধন দোয়ারাবাজারে মৎস্য ব্যবসায়ীদের ধর্মঘট উপজেলাজুড়ে মাছের জন্য হাহাকার কালিয়ায় বঙ্গবন্ধুর জুলিও কুরি শান্তি পদক প্রাপ্তির ৫০ বছর উদ্‌যাপন নবীনগর স্কুলের টাকা আত্মসাতের কথা স্বীকার করলেন প্রধান শিক্ষক! মোংলায় বজ্রপাতে নিহত ১, আহত ১

১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে ছাত্রলীগের কর্মীসভা দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া

এস এম মাসুদ রানা, কুমিল্লা।
  • আপডেট সময় : ০৯:৩৮:০৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ মে ২০২৩ ২০ বার পড়া হয়েছে
দেশের সময়২৪ অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

কুমিল্লার দেবিদ্বারে একই স্থানে যুবলীগ ও ছাত্রলীগ সভায় ডাকায় ১৪৪ ধারা জারি করে দেবিদ্বার উপজেলা প্রশাসন। পরে ১৪৪ ধারা জারি ভঙ্গ করে কর্মীসভা করেছে ৬নং ফতেহাবাদ ইউনিয়ন ছাত্রলীগ। এ সময় সভাস্থলে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন ছিলো। শনিবার বিকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, দেবিদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আবুল কালাম আজাদ সমর্থিত উপজেলা ছাত্রলীগের নির্দেশে শনিবার বিকেলে চান্দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এক কর্মীসভা আহবান করে ফতেহাবাদ ইউনিয়ন ছাত্রলীগ। অপরদিকে, একই স্থানে এইদিন একই সময়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুলের সমর্থিত উপজেলা যুবলীগের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আরও একটি আলোচনা সভা ডাকা হয়। এ নিয়ে সকাল থেকে উত্তেজনা দেখা দিলে স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে ওই বিরোধপূর্ণ স্থানে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। এর আগে মো. আবুল কালাম আজাদ সমর্থিত ছাত্রলীগের আয়োজনে তৈরী মঞ্চ ও সভাস্থলের চেয়ার ভাঙচুর করে যুবলীগ কর্মীরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিগার সুলতানা, দেবিদ্বার সার্কেল এএসপি আমিরুল্লা ও থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) খাদেমুল বাহার এর নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ যেয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
পরে উভয় পক্ষের সংঘর্ষ এড়াতে স্থানীয় প্রশাসন সভাস্থলে ১৪৪ ধারা জারি করলেও দেবিদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগ এর সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আবুল কালাম আজাদের সমর্থিত ৫/৬শ ছাত্রলীগ নেতা-কর্মী ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে ওইস্থানে কর্মীসভা করেন। এ ব্যাপারে উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক আসাদুর রহমান রনি জানান, আমরা চারদিন আগে নির্ধারিত কর্মসূচীর অংশ হিসেবে আমরা চান্দপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে ছাত্রলীগের কর্মীসভা আহবান করি। পরে একই স্থানে স্থানীয় এমপি সমর্থিত যুবলীগও একটি সভা ডাকে। আমাদের কর্মী সভা শুরুর আগেই এমপি সমর্থকরা আমাদের মঞ্চ, পেন্ডেল ও চেয়ার ভাঙচুর করে পালিয়ে যায়। আমাদের ছাত্রলীগ কর্মীদের বাঁধভাঙ্গা তে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করেই কর্মীসভা চালাতে বাধ্য হই। এ ব্যাপরে স্থানীয় এমপি রাজী মোহাম্মদ ফখরুল সমর্থক যুবলীগ উপজেলা সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান মো. আবুল কাসেম ওমানী জানান, শনিবার (২০ মে) বিকেল ৩টায় চান্দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে যুবলীগের কর্মীসভা হওয়ার কথা ছিল, উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ সমর্থকরা আমাদের কর্মীদের সভাস্থলে জমায়েত হতে দেয়নি। তারা আমাদের লোকদেরকে স্কুল মাঠ থেকে বের করে দেয়। প্রশাসন সভাস্থলে ১৪৪ ধারা জারি করায় আমরা কর্মসূচী বাতিল করি। ওরা নিজেরা নিজেদের মঞ্চ, পেন্ডেল, চেয়ার ভাঙচুর করে আমাদের উপর দোষ দিচ্ছে।
এ ব্যাপারে দেবিদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি তদন্ত) খাদেমুল বাহার আবেদ জানান, ছাত্রলীগ এবং যুবলীগ একই স্থানে একই সময়ে কর্মীসভা ডেকেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর নির্দেশে ঘটনাস্থল ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। ছাত্রলীগ বিশাল কর্মী বাহিনী নিয়ে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে সভা করেছে। ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা মো. আরেফিন ফয়সাল তুহিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন দেবিদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আবুল কালাম আজাদ। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. সাইফুল ইসলাম রুবেল। বিশেষ অতিথি ছিলেন, ৯নং গুনাইঘর উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও সাবেক ছাত্রনেতা মো. মোকবল হোসেন মুকুল, ফতেহাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ কামরুজ্জামান মাসুদ,জাফরগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. জাহিদুল আলম, সাবেক ছাত্রনেতা মো. হাবিবুর রহমান, হুসাইন আহমেদ, শয়ন দাস। বিশেষ বক্তা ছিলেন, দেবিদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগ আহবায়ক, মো আসাদুর রহমান রনি, দেবিদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগ যুগ্ম আহবায়ক মো. সারোয়ার হোসেন রাকিব, মো. গোলাম মহিউদ্দিন সবুজ, মো. ইমরান হোসেন ইমু, মো: গাজী আসিফ বিন লতিফ, মো. দিদারুল আলম ফয়েজ প্রমুখ।
এ ব্যাপারে দেবিদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো.আবুল কালাম আজাদ বলেন, ছাত্রলীগের র্পূব ঘোষিত কর্মীসভা বানচাল করতে একটি কুচক্রী মহল সভা শুরু হওয়ার এক ঘন্টা পূর্বে সভাস্থলে হামলা চালিয়ে চেয়ার এবং মঞ্চ ভাঙচুর করেছে। এই খবর পেয়ে ছাত্রলীগরে শত শত নেতাকর্মী সভাস্থলে উপস্থিত হয়ে তাদের কর্মীসভা সফল করে। আমি শুনেিছ ১৪৪ ধারা জারি হয়েছে। যেহেতু সভাটি চলমান ছিল তাই আমি উপস্থতি হয়েছি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে ছাত্রলীগের কর্মীসভা দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া

আপডেট সময় : ০৯:৩৮:০৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ মে ২০২৩

কুমিল্লার দেবিদ্বারে একই স্থানে যুবলীগ ও ছাত্রলীগ সভায় ডাকায় ১৪৪ ধারা জারি করে দেবিদ্বার উপজেলা প্রশাসন। পরে ১৪৪ ধারা জারি ভঙ্গ করে কর্মীসভা করেছে ৬নং ফতেহাবাদ ইউনিয়ন ছাত্রলীগ। এ সময় সভাস্থলে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন ছিলো। শনিবার বিকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, দেবিদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আবুল কালাম আজাদ সমর্থিত উপজেলা ছাত্রলীগের নির্দেশে শনিবার বিকেলে চান্দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এক কর্মীসভা আহবান করে ফতেহাবাদ ইউনিয়ন ছাত্রলীগ। অপরদিকে, একই স্থানে এইদিন একই সময়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুলের সমর্থিত উপজেলা যুবলীগের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আরও একটি আলোচনা সভা ডাকা হয়। এ নিয়ে সকাল থেকে উত্তেজনা দেখা দিলে স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে ওই বিরোধপূর্ণ স্থানে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। এর আগে মো. আবুল কালাম আজাদ সমর্থিত ছাত্রলীগের আয়োজনে তৈরী মঞ্চ ও সভাস্থলের চেয়ার ভাঙচুর করে যুবলীগ কর্মীরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিগার সুলতানা, দেবিদ্বার সার্কেল এএসপি আমিরুল্লা ও থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) খাদেমুল বাহার এর নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ যেয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
পরে উভয় পক্ষের সংঘর্ষ এড়াতে স্থানীয় প্রশাসন সভাস্থলে ১৪৪ ধারা জারি করলেও দেবিদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগ এর সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আবুল কালাম আজাদের সমর্থিত ৫/৬শ ছাত্রলীগ নেতা-কর্মী ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে ওইস্থানে কর্মীসভা করেন। এ ব্যাপারে উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক আসাদুর রহমান রনি জানান, আমরা চারদিন আগে নির্ধারিত কর্মসূচীর অংশ হিসেবে আমরা চান্দপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে ছাত্রলীগের কর্মীসভা আহবান করি। পরে একই স্থানে স্থানীয় এমপি সমর্থিত যুবলীগও একটি সভা ডাকে। আমাদের কর্মী সভা শুরুর আগেই এমপি সমর্থকরা আমাদের মঞ্চ, পেন্ডেল ও চেয়ার ভাঙচুর করে পালিয়ে যায়। আমাদের ছাত্রলীগ কর্মীদের বাঁধভাঙ্গা তে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করেই কর্মীসভা চালাতে বাধ্য হই। এ ব্যাপরে স্থানীয় এমপি রাজী মোহাম্মদ ফখরুল সমর্থক যুবলীগ উপজেলা সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান মো. আবুল কাসেম ওমানী জানান, শনিবার (২০ মে) বিকেল ৩টায় চান্দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে যুবলীগের কর্মীসভা হওয়ার কথা ছিল, উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ সমর্থকরা আমাদের কর্মীদের সভাস্থলে জমায়েত হতে দেয়নি। তারা আমাদের লোকদেরকে স্কুল মাঠ থেকে বের করে দেয়। প্রশাসন সভাস্থলে ১৪৪ ধারা জারি করায় আমরা কর্মসূচী বাতিল করি। ওরা নিজেরা নিজেদের মঞ্চ, পেন্ডেল, চেয়ার ভাঙচুর করে আমাদের উপর দোষ দিচ্ছে।
এ ব্যাপারে দেবিদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি তদন্ত) খাদেমুল বাহার আবেদ জানান, ছাত্রলীগ এবং যুবলীগ একই স্থানে একই সময়ে কর্মীসভা ডেকেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর নির্দেশে ঘটনাস্থল ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। ছাত্রলীগ বিশাল কর্মী বাহিনী নিয়ে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে সভা করেছে। ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা মো. আরেফিন ফয়সাল তুহিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন দেবিদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আবুল কালাম আজাদ। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. সাইফুল ইসলাম রুবেল। বিশেষ অতিথি ছিলেন, ৯নং গুনাইঘর উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও সাবেক ছাত্রনেতা মো. মোকবল হোসেন মুকুল, ফতেহাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ কামরুজ্জামান মাসুদ,জাফরগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. জাহিদুল আলম, সাবেক ছাত্রনেতা মো. হাবিবুর রহমান, হুসাইন আহমেদ, শয়ন দাস। বিশেষ বক্তা ছিলেন, দেবিদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগ আহবায়ক, মো আসাদুর রহমান রনি, দেবিদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগ যুগ্ম আহবায়ক মো. সারোয়ার হোসেন রাকিব, মো. গোলাম মহিউদ্দিন সবুজ, মো. ইমরান হোসেন ইমু, মো: গাজী আসিফ বিন লতিফ, মো. দিদারুল আলম ফয়েজ প্রমুখ।
এ ব্যাপারে দেবিদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো.আবুল কালাম আজাদ বলেন, ছাত্রলীগের র্পূব ঘোষিত কর্মীসভা বানচাল করতে একটি কুচক্রী মহল সভা শুরু হওয়ার এক ঘন্টা পূর্বে সভাস্থলে হামলা চালিয়ে চেয়ার এবং মঞ্চ ভাঙচুর করেছে। এই খবর পেয়ে ছাত্রলীগরে শত শত নেতাকর্মী সভাস্থলে উপস্থিত হয়ে তাদের কর্মীসভা সফল করে। আমি শুনেিছ ১৪৪ ধারা জারি হয়েছে। যেহেতু সভাটি চলমান ছিল তাই আমি উপস্থতি হয়েছি।