কক্সবাজারে কটেজ জোনে নগরবধূ ও খদ্দের আটক ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা - DesherSomoy24.com
ঢাকারবিবার , ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২২
  1. অপরাধ
  2. আন্তর্জাতিক
  3. খেলা
  4. জাতীয়
  5. নির্বাচন
  6. প্রচ্ছদ
  7. প্রধান খবর
  8. প্রবাসে বাংলা
  9. ফিচার
  10. বিনোদন
  11. ব্যবসা ও বাণিজ্য
  12. রাজনীতি
  13. শিক্ষা ও সাহিত্য
  14. সব
  15. সারাদেশ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

কক্সবাজারে কটেজ জোনে নগরবধূ ও খদ্দের আটক ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা

Mohammad Ali Sumon
ফেব্রুয়ারি ৬, ২০২২ ৩:১৯ অপরাহ্ণ
Link Copied!

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, কক্সবাজারঃ কক্সবাজারের কলাতলী লাইটহাউস পাড়ায় পতিতাপল্লী খ্যাত কটেজ জোনের বেশ কয়েকটি আবাসিক কটেজে যৌথ অভিযান চালিয়েছে কক্সবাজার সদর মডেল থানা ও জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশ। শুক্রবার ৪ ফেব্রুয়ারী রাতে তিন ঘন্টাব্যাপী এ অভিযানে নেতৃত্বে দেন কক্সবাজার সদর মডেল থানার ইন্সপেক্টর (অপারেশন) মো.সেলিম ও ডিবির ওসি।

অভিযানে আরো অংশ নেন, কক্সবাজার সদর মডেল থানা ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশের সঙ্গীয় ফোর্স।
এসময় ঢাকার বাড়ী-২ কটেজ,আমীর ড্রীম কটেজ , ঢাকার বাড়ি-১ কটেজসহ কয়েকটি কটেজ থেকে অনৈতিক কাজে লিপ্ত থাকার অভিযোগে ৮ জন পতিতা ও খদ্দের আটক করা হয়।

আটককৃতদের কক্সবাজার সদর মডেল থানা হেফাজতে নিয়ে যাওয়া হয়। এঘটনায় ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে এসআই মিজানুর রহমান।

জানা গেছে, কলাতলী লাইট হাউজ পাড়া কটেজ জোন এলাকায় আবাসিক কটেজের আড়ালে দীর্ঘদিন ধরে নারী নিয়ে ব্যবসার পাশাপাশি মাদক সহ বিভিন্ন অপরাধ কর্মকাণ্ড সংঘটিত হয়ে আসছিল।

সুত্রে আরো জানা গেছে, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা বিভিন্ন সময় অভিযান চালিয়ে ওইসব কটেজ নামের নগরবধূদের ডেরা থেকে ইয়াবা, পতিতা ও খদ্দের আটক করে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে মানবপাচার ও পতিতাবৃত্তির ধারায় মামলা দায়ের করা হয়। এরপর অনেকে দীর্ঘদিন কারাভোগের পর আদালত থেকে জামিনে মুক্তি পেয়ে ফের জড়িয়ে পড়ে অনৈতিক ব্যবসায়।

কটেজ জোন এলাকার কয়েকটি অপরাধী চক্র দীর্ঘদিন ধরে এধরনের অনৈতিক ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করে আর্থিক ভাবে লাভবান হলেও এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি দিনদিন অবনতির দিকে ধাবিত হচ্ছিল।

কক্সবাজার সদর মডেল থানা ইন্সপেক্টর (অপারেশন) মো. সেলিম বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কলাতলী লাইট হাউজপাড়া কটেজজোন এলাকায় অভিযান চালানো হয়। অভিযানকালে কটেজ থেকে আটক করা হয় ৮ জন পতিতা, খদ্দের ও দালাল।মাদক, পতিতাবৃত্তি, ছিনতাইকারী সহ সব ধরনের অপরাধ রোধে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রাখবে।
ইন্সপেক্টর (অপারেশন) মো. সেলিম আরও জানান, আটককৃত পতিতা, দালাল ও খদ্দরের বিরুদ্ধে এসআই মিজানুর রহমান বাদী হয়ে মানবপাচার আইনে মামলা দায়ের করেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, পুলিশের অভিযানে খবর ছড়িয়ে পড়লে আশপাশে কটেজগুলো থেকে আরো অন্তত শতাধিক পতিতা কৌশলে রংধনু কটেজ সড়ক দিয়ে নিরাপদে সরে পড়ে। তবে ১২ টার পর ফের শুরু হয়েছে পতিতা ব্যবসা।
আটককৃত পতিতা ও খদ্দরদের শনিবার বিকালে আদালতে সোপর্দ করা হলে আদালত তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।