ঢাকাবুধবার , ১২ জানুয়ারি ২০২২
  1. অপরাধ
  2. আইন আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. কৃষি
  5. খুলনা
  6. খুলনা
  7. খেলা
  8. গণমাধ্যম
  9. চট্টগ্রাম
  10. চট্টগ্রাম
  11. চাকরির খোঁজ
  12. জাতীয়
  13. ঢাকা
  14. ঢাকা
  15. তথ্য ও প্রযুক্তি
আজকের সর্বশেষ সবখবর

শাল্লার ইউএনও র বিরুদ্ধে ডিসির নিকট অভিযোগ চেয়ারম্যানদের

Mohammad Ali Sumon
জানুয়ারি ১২, ২০২২ ২:০৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আল মুক্তাদির হোসেন এর বিরুদ্ধে পাউবো র বাঁধ নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি গঠনে অনিয়মের বিষয়ে ডিসি’র নিকট মঙ্গলবার ১১ জানুয়ারি লিখিত অভিযোগ করেন উপজেলার সকল চেয়ারম্যানগন।

অভিযোগে তাঁরা উল্লেখ করেন, শাল্লায় হাওর রক্ষা বাঁধের কাজের (পিআইসি) গঠনে উপজেলার সকল ইউনিয়নের চেয়ারম্যানদের না জানিয়ে তিনি তার মনগড়া মত পিআইসি গঠন করেন।

এসব বিষয় নিয়ে সোমবার ১০ জানুয়ারিস কাল ১১ টায় উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে সভা শুরু হলে পিআইসি গঠনকে কেন্দ্র করে নির্বাহী কর্মকর্তা আল মুক্তাদির হোসেনের সঙ্গে চেয়ারম্যানরা

বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে সভা ত্যাগ করতে বাধ্য হলেন চেয়ারম্যানগন। নির্বাহী কর্মকর্তার এমন আচরণে ক্ষুব্ধ হয়ে মঙ্গলবার ১১ জানুয়ারি চেয়ারম্যানরা সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক (ডিসি) মহোদয়ের নিকট লিখিত অভিযোগ করেছেন বলে ২ নং হবিবপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বিবেকানন্দ মজুমদার বকুল জানান।

এবিষয়ে বাহাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বিধান চৌধুরী জানান আজ (বুধবার) সকল চেয়ারম্যানগন মিলে
একটি সভা করে পরবর্তী কার্যক্রমের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিবেন । তিনি আরো বলেন নির্বাহী কর্মকর্তা আল মুক্তাদির হোসেনের বিরুদ্ধে পুর্বেও অশঙ্ক দুর্নীতি অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে। তার পরও তিনি কান্ত হননি। তিনি তার ইচ্ছা মাফিক যা ইচ্ছা তাই করছেন।

উপজেলার ৪টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যানগন হলেন, আটগাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল কাশেম আজাদ, হবিবপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বিবেকানন্দ মজুমদার বকুল, বাহাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বিধান চৌধুরী, শাল্লা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জামান চৌধুরী ফুল মিয়া।

চেয়ারম্যানদের অভিযোগ, প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আল মুক্তাদির হোসেন ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারি প্রকৌশলী(এসও) আব্দুল কাইয়ুম কমিটির একজনে যোগসাজশে মোট অংকের অর্থের বিনিময়ে গোপনে তালিকা তৈরি করেন ।

যা নীতিমালার বহির্ভুত। কমিটির সকল সদস্য ও উপদেষ্টাদের মতামতের ভিত্তিতে প্রকৃত কৃষকদের নিয়ে পিআইসি গঠন করতে হয়। কিন্তু তা না করে টাকার বিনিময়ে কৃষক ছাড়াই পিআইসি তালিকা করা হয়েছে।

আর প্রত্যেকটি ইউনিয়নে তারা সিন্ডিকেট তৈরি করে রাতের আঁধারে পিআইসি গঠন করেছেন। তাদের এই দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার ফলে নির্বাহী কর্মকর্তা আল মুক্তাদির হোসেন তাঁদের সঙ্গে অশুভ আচরণ করায় সভা বয়কট করেছেন চেয়ারম্যানরা বলে তাঁরা জানান।

আটগাও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল কাশেম আজাদ জানান, হাওর রক্ষা বাঁধের কাজের (পিআইসি) তালিকা সিন্ডিকেটের মাধ্যমে তৈরি করা হয়েছে। প্রতিটি ইউনিয়নে দালালের মাধ্যমে লাখ লাখ টাকা ঘুষ নিয়ে প্রকল্প তালিকা গঠন করা হয়েছে ।

নিয়ম অনুযায়ী উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সকল সদস্যদের মতামত নিয়ে প্রকল্প তৈরি করতে হয়। কিন্তু তা না করে দু’জন ব্যাক্তির নির্দেশেই এমন দুর্নীতি চলছে। তাই দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতেই সভা থেকে আমাদেরকে চলে যেতে বলা হয়।

তাই আমরা পিআইসির সভা বয়কট করেছি। এখন জেলা প্রশাসক ও বিভাগীয় কমিশনারের কাছে আমরা চার চেয়ারম্যান তার দুর্নীতি অনিয়মের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাবো।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আল মুক্তাদির হোসেন বলেন, চেয়ানম্যানরা পিআইসির সভায় আসেনি। সভায় না এসে কিভাবে বয়কট করা হয় সেটা আমি জানি না।